Sharing is caring!

নতুন বছর এলে শুভেচ্ছা বিনিময়ের পাশাপাশি অনেক স্বপ্ন দেখি আমরা। গতানুগতিক বছর পেরিয়ে বছর আসা-যাওয়া করে। কিন্তু সামষ্টিক জীবনে আমাদের কোনো পরিবর্তন হয়েছে কি না এ নিয়ে ভাবনা আদৌ কতটুকু? এসব নিয়ে চবিয়ানরা কি ভাবছেন? তাদের সঙ্গে কথা বলে আরো জানাচ্ছেন- রুমান হাফিজ
তারুণ্যের প্রতিনিধিত্ব হোক আরো

আশরাফুল ইসলাম পড়েন পরিসংখ্যান বিভাগে। তার কথায়, পুরোনো বছরের হিসেব চুকিয়ে নতুন সম্ভাবনায় নিজেকে শতভাগ দিতে তরুণের বিস্তর যোগবিয়োগের শেষ নেই। নতুন বছরকে আপন সম্ভাবনায় মানিয়ে নিয়ে পড়াশোনার পাশাপাশি দেশের সামগ্রিক প্রতিকুলতায় নিজেকে অবদানের জন্য যোগ্য করে, নতুন বছরকে বরণের এই আগমনী গান বেজে উঠুক সকল উদ্দীপ্ত তরুণ তরুণীর মাঝে। সবার মাঝে আসুক শুদ্ধ পরিবর্তনের ছোঁয়া।

দেশকে এগিয়ে নেওয়ার দায়িত্ব আমাদের

সংগীত বিভাগে পড়েন বর্ষা চাকমা। তিনি বলেন, নতুন বছর ভালো কাটুক সবার। দেশে বাড়ছে শিক্ষিতের হার। সেই অনুপাতে বেকারের সংখ্যা কমে যায় দেশকে মধ্যম আয়ের দেশ থেকে উচ্চ আয়ের দেশে পরিণত করতে বেশি সময় লাগবে না। আমাদের দেশটাকে বিশ্বের বুকে তুলে ধরার দায়িত্ব আমাদের। তবে অপরাধ বাড়ছে। মনকে পবিত্র করে
সংস্কৃতি চর্চার প্রতি আগ্রহ বাড়াতে হবে। তাহলে আপরাধ কমে যাবে। নতুন উচ্ছাসে মানুষের জীবনের সব গ্লানি, কাজে আসুক নতুন গতি।

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিশ্চিত হোক

আরবি বিভাগে পড়েন মিনহাজ তুহিন। তার কথায়, দেখতে দেখতে একটি বছর শেষ হলো। পুরনো দিনের হিসেব নিকেশ কষে নতুন প্রজম্মের একজন হিসেবে অনাগত বছরের নিকট কিছু চাওয়া পাওয়া আছে। সবার আগে প্রত্যাশা থাকবে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিশ্চিত করা। মানবিক কারণে আশ্রয় দেয়া হলেও বর্তমানে তারা জাতীয় নিরাপত্তার জন্য অনেককটা হুমকি স্বরুপ। নতুন বছরে আরো চাওয়া থাকবে তরুণ প্রজন্মের জন্য যথাযথ কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা। যাতে উচ্চ শিক্ষা শেষ করে বছরের পর পর বছর বেকার বসে থাকতে না হয়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করা।

আর কোনো আবরারকে হারাতে চাই না

মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনা বিভাগ পড়েন হাবিবুন নাহার বিথী। নতুন বছরের প্রত্যাশা নিয়ে তিনি বলেন, চোখের পলকেই শেষ হয়ে এলো ২০১৯! আমি চাই প্রতিটি মানুষ সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে পরিবর্তন নিয়ে আসুক! ২০২০ নিয়ে আসুক নিরাপদ জীবন। আর কোনো আবরার মারা যাক বা মেরে ফেলা হোক তা আমরা চাই না। এই লাল সবুজের দেশে অরাজকতা ধ্বংস করে শান্তি নিয়ে আসতে কাজ করতে হবে সবাইকে। দুর্নীতিমুক্ত এবং স্থিতিশীল বাংলাদেশই আমাদের সবার কাম্য।

বাসযোগ্য পৃথিবী হোক সবার

বাংলা বিভাগের জাহিদ হাসান মিহাদ বলেন, প্রতিটি নতুন বছরই নতুন কিছুর বার্তা নিয়ে আমাদের প্রাণে আশার সঞ্চার করে। নতুন বছরে পৃথিবী হয়ে উঠুক আরও বেশি বাসযোগ্য ও প্রাণবন্ত। তারুণ্যের গবেষণা ও সৃষ্টিশীল কর্মের পরিবেশ নিশ্চিত হোক। মানুষে মানুষে সম্প্রীতি আরও বাড়ুক। নিশ্চিত হোক সবার প্রাপ্য অধিকার। আমরা মানবিক পৃথিবী চাই; প্রযুক্তিকে যথাযথ ব্যবহার করে মানুষের প্রয়োজনে ব্যবহৃত হতে পারে, এমন সব আবিষ্কার উদ্ভাবনের পরিবেশ চাই। তারুণ্যোদ্দীপ্ত প্রজন্মের হাত ধরে এগিয়ে চলুক একবিংশ শতাব্দীর পৃথিবী।

Sharing is caring!

https://i2.wp.com/culive24.com/wp-content/uploads/2020/01/চবিয়ানদের-প্রত্যাশায়-নতুন-বছর.jpg?fit=700%2C394&ssl=1?v=1577928131https://i2.wp.com/culive24.com/wp-content/uploads/2020/01/চবিয়ানদের-প্রত্যাশায়-নতুন-বছর.jpg?resize=150%2C150&ssl=1?v=1577928131culiveফিচারমতামতচবিয়ান,নতুন বছরনতুন বছর এলে শুভেচ্ছা বিনিময়ের পাশাপাশি অনেক স্বপ্ন দেখি আমরা। গতানুগতিক বছর পেরিয়ে বছর আসা-যাওয়া করে। কিন্তু সামষ্টিক জীবনে আমাদের কোনো পরিবর্তন হয়েছে কি না এ নিয়ে ভাবনা আদৌ কতটুকু? এসব নিয়ে চবিয়ানরা কি ভাবছেন? তাদের সঙ্গে কথা বলে আরো জানাচ্ছেন- রুমান হাফিজ তারুণ্যের প্রতিনিধিত্ব হোক আরো আশরাফুল ইসলাম পড়েন পরিসংখ্যান...Think + and get inspired | Priority for Success and Positive Info of Chittagong University