Sharing is caring!

Culive24desk :-দেশের অন্যতম সায়ত্তশাসিত বিদ্যাপীঠ , চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি)তে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ২০১৯-২০ সেশনের ভর্তি পরীক্ষা।বরাবরের মতো দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষার সুযোগ না থাকলেও তবে মানোন্নয়ন দিয়ে শর্তসাপেক্ষে ভর্তি পরীক্ষার সুযোগ দিয়েছিল চবি প্রশাসন। কিন্তু বেশ কিছু পরীক্ষার্থীর ভুলের কারণে বা অকারণে এইবার মানোন্নয়কৃত পরীক্ষার্থীদের ভর্তি হওয়া নিয়ে এসেছে সংশয়।

এই বিষয়ে, ” চবি ভর্তি পরীক্ষায় উর্ত্তীণ হয়েও যারা ভর্তি হতে পারবেননা
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সংবাদের কাছে ব্যাখ্যা দিলেন আইসিটি সেলের ডিরেক্টর হানিফ সিদ্দিকি

প্রথমতঃ নির্ধারিত ওয়েবসাইটে “Apply Now” এর অনেক উপরে প্রথম দিকে “আবেদনের পূর্বে লক্ষ্য করুন” লেখা ছিল, যা ফলো না করা শিক্ষার্থীর ইচ্ছাকৃত বা অনিচ্ছাকৃত হতে পারে। ইচ্ছাকৃত হলে সে ঠিক করে নাই, কিন্তু অনিচ্ছাকৃত হলে দায়িত্বহীন বা কান্ডজ্ঞানহীন আচরণ করেছে। দুটোই কাম্য নয়।
নির্দেশনায় যা ছিলোঃ “২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তির জন্য যারা ২০১৮ সালের উচ্চ মাধ্যমিক/সমমান পরীক্ষার ফলাফলে আবেদনের যোগ্য ছিল না তবে ২০১৯ সালের উচ্চ মাধ্যমিক/সমমান পরীক্ষায় (মান উন্নয়ন) অংশগ্রহণ করে যোগ্যতা অর্জন করেছে তারা আবেদনের যোগ্য বিবেচিত হবে।”
নির্দেশনার ব্যাখাঃ ৩টি ভিন্ন ভিন্ন ক্ষেত্র খেয়াল করুন।
ক) ২০১৬ সালের যারা মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ২০১৮ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দেবার কথা থাকলেও যে কোন কারণে পরীক্ষা দিতে পারে নাই, কিন্তু ২০১৯ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়ে চবিতে ভর্তির যোগ্যতা অর্জন করেছে, তারা ভর্তি যোগ্য বলে বিবেচিত হবে।
খ) ২০১৬ সালের যারা মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ২০১৮ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছিল এবং চবিতে ভর্তি পরীক্ষা দেবার যোগ্যতা ছিল না, কিন্তু ২০১৯ সালে উচ্চ মাধ্যমিক (মান উন্নয়ন) পরীক্ষা দিয়ে চবিতে ভর্তির যোগ্যতা অর্জন করেছে, তারাও ভর্তি যোগ্য বলে বিবেচিত হবে।
গ) ২০১৬ সালের যারা মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ২০১৮ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছিল এবং চবিতে ভর্তি পরীক্ষা দেবার যোগ্যতা ছিল (আবেদন করেছে কিংবা করে নাই)। তারা ২০১৯ সালে উচ্চ মাধ্যমিক (মান উন্নয়ন) পরীক্ষা দিয়ে চবিতে ভর্তির জন্য ইচ্ছাকৃত/অনিচ্ছাকৃত ভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্দেশনা না মেনে আবেদন করেছে, তারাই শুধুমাত্র ভর্তি যোগ্য বলে বিবেচিত হবে না।
কেন অনলাইন সিস্টেম তাদেরকে ব্লক করে নাই?
প্রসঙ্গত, অনলাইনে আবেদনের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীকে মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিকের পাশের সন, বোর্ড ও রোলনং (মোট ৬টি বিষয়) উল্লেখ করতে হয়। সিস্টেমে ২০১৬ সালের মাধ্যমিকের শিক্ষার্থীদের সহজে সনাক্ত করা যায়, কিন্তু (খুব মনোযোগ দিয়ে খেয়াল করুন) ২টি ঘটনা ঘটতে পারেঃ

ধরে নিচ্ছি, ২০১৬ সালের শিক্ষার্থী সনাক্ত করার পরে, ২০১৮ সালের উচ্চ মাধ্যমিকের পাশের সন, বোর্ড ও রোল নং নেবার জন্য আরেকটি ফরম আসতে পারতো, যা
১) অবশ্য পূরণীয় হলে (ক) ক্ষেত্রের পরীক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করতে পারবে না। এটি নির্দেশনার স্পষ্ট ব্যত্যয়।

২) অবশ্য পূরণীয় না হলে অর্থ্যাৎ অপশনাল হলে (গ) ক্ষেত্রের পরীক্ষার্থীরাও (বাইপাস করে) অংশগ্রহণ করে ফেলবে। এটিও নির্দেশনার স্পষ্ট ব্যত্যয়।
আবার, অনলাইন সিস্টেম ২০১৬ সালের সকল শিক্ষার্থীদের ব্লক করলে (ক) ও (খ) উভয় শিক্ষার্থীই ব্লক হয়ে যেত, যা নির্দেশনার স্পষ্ট ব্যত্যয়।
কাজেই, বিদ্যমান ভর্তি নির্দেশনা মানার ক্ষেত্রে এটি আবেদনকারীদের নীতিনৈতিকতার উপরে ছেড়ে দিয়ে পরবর্তিতে যোগ্য এবং বৈধ শিক্ষার্থীদের ভর্তির জন্য ভর্তি কমিটির পূর্ব-সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট ইউনিট অফিসের যাচাই-বাছাই এর উপরে ছেড়ে দেয়া ছাড়া আইসিটি সেলের অন্য কোন করনীয় কিছু ছিল না।।

 

হানিফ সিদ্দিকি
ডিরেক্টর, চবি আইসিটি সেল

Sharing is caring!

https://i0.wp.com/culive24.com/wp-content/uploads/2019/06/iR12w0EwsGcUBQ1O5KUzIYamFcBQXPXg3axlb7mR.jpeg?fit=640%2C400&ssl=1https://i1.wp.com/culive24.com/wp-content/uploads/2019/06/iR12w0EwsGcUBQ1O5KUzIYamFcBQXPXg3axlb7mR.jpeg?resize=150%2C150&ssl=1michilঅনলাইন এক্সামআইটিএকাডেমিকএক্সক্লুসিভক্যাম্পাসক্যারিয়ারপরীক্ষা ও ফলাফলশিক্ষাChittagong bd,cu,Cu Admission suggeste,cu news 2019-20 sessio,cu.ac.bdCulive24desk :-দেশের অন্যতম সায়ত্তশাসিত বিদ্যাপীঠ , চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি)তে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ২০১৯-২০ সেশনের ভর্তি পরীক্ষা।বরাবরের মতো দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষার সুযোগ না থাকলেও তবে মানোন্নয়ন দিয়ে শর্তসাপেক্ষে ভর্তি পরীক্ষার সুযোগ দিয়েছিল চবি প্রশাসন। কিন্তু বেশ কিছু পরীক্ষার্থীর ভুলের কারণে বা অকারণে এইবার মানোন্নয়কৃত পরীক্ষার্থীদের ভর্তি হওয়া নিয়ে এসেছে সংশয়। এই...Think + and get inspired | Priority for Success and Positive Info of Chittagong University