Sharing is caring!

চবি প্রতিনিধি : নিয়মবহির্ভূত ও ত্রুটিপূর্ণ প্রশ্ন দিয়ে নেওয়া হয়েছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ‘ডি’ ইউনিটের দুই শিফটের ভর্তি পরীক্ষা। ফলে স্থগিত করা হয় ‘ডি’ ইউনিটের রেজাল্ট।

২৮ অক্টোবর ‘ডি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরুর পর দুই শিফটে ন্যাশনাল কারিকুলামের ৪১৬ জন শিক্ষার্থী প্রশ্ন নিয়ে জটিলতায় পড়েন। কিন্তু ঘটনার দিন তা কিছুই জানতেন না বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (রুটিন দায়িত্বপ্রাপ্ত) ড. শিরীণ আখতার এবং ইউনিট কো-অর্ডিনেটর অধ্যাপক ড. আবদুল্লাহ আল ফারুক।

পরীক্ষার পরদিন ২৯ অক্টোবর বিকেলে ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের এক শিক্ষক ও কয়েকজন অভিভাবক উপাচার্যকে ফোনে মৌখিকভাবে বিষয়টি নিয়ে অভিযোগ করেন। পরে সন্ধ্যায় ইউনিট সদস্যদের নিয়ে বৈঠক করেন উপাচার্য। সেখানে ৬ নভেম্বর ওই ৪১৬ জন শিক্ষার্থীর পুনরায় পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

‘ডি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা প্রশ্ন প্রণয়ন ও প্রশ্নের ভুল ধরা পড়ে। চবির ভর্তি পরীক্ষায় সাধারণ, ব্রিটিশ ও ন্যাশনাল কারিকুলামে তিন ধরনের প্রশ্ন তৈরী করা হয়ে থাকে। এর মধ্যে প্রথমটি জাতীয় পাঠ্যক্রমে বাংলা মাধ্যমে পড়া শিক্ষার্থীদের জন্য। এই প্রশ্নে শুধু ইংরেজি অংশের প্রশ্ন ইংরেজিতে হয়ে থাকে। বাকি সব প্রশ্ন বাংলায় করা হয়। দ্বিতীয়টি জাতীয় পাঠ্যক্রমে ইংরেজি মাধ্যমে পড়া শিক্ষার্থীদের জন্য। এই প্রশ্নে শুধু বাংলা অংশের প্রশ্ন বাংলায় করা হয়। বাকি সব প্রশ্ন ইংরেজিতে থাকে। তৃতীয়টি ব্রিটিশ কারিকুলামে পড়া শিক্ষার্থীদের জন্য। এই প্রশ্নে সব বিভাগের প্রশ্ন ইংরেজিতে করা হয়।

এবার ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম ও তৃতীয় পদ্ধতিতে প্রশ্নপত্র প্রণয়ন করলেও দ্বিতীয় পদ্ধতিতে জাতীয় পাঠ্যক্রমে ইংরেজি মাধ্যমে পড়া শিক্ষার্থীদের জন্য প্রশ্ন প্রণয়ন না করেই নেওয়া হয়েছে ব্রিটিশ কারিকুলামে পড়া শিক্ষার্থীদের প্রশ্নে।

‘ডি’ ইউনিটে ব্রিটিশ এবং ন্যাশনাল কারিকুলামের ৬৭৬ জন ভর্তিচ্ছুদের জন্য পরীক্ষার কেন্দ্র নির্ধারণ করা হয় সমজ বিজ্ঞান অনুষদের ১০১, ১০২ এবং ১০৩ নম্বর রুমে। সেখানে ন্যাশনাল কারিকুলামের ইংরেজি মাধ্যমের ৪১৬ জন শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। পরীক্ষা শুরু হলে তাদের ৩০ নম্বরের বাংলা প্রশ্ন সম্বলিত প্রশ্নপত্রের পরিবর্তে দেওয়া হয় ব্রিটিশ কারিকুলামের মতো সব বিষয়ের ইংরিজেতে প্রশ্ন সম্বলিত প্রশ্নপত্র। পরীক্ষার্থীরা এমন প্রশ্নপত্র নিয়ে আপত্তি জানালে সমাজ বিজ্ঞান অনুষদ কেন্দ্রের তত্ত্বাবধানে থাকা ড. কাজী এস এম খসরুল আলম কুদ্দুসী ৩০ নম্বরের স্পেশাল ইংরেজি উত্তর করতে নির্দেশ দেয়। শিক্ষার্থীরা সেই মতোই উত্তর করে।

কিন্তু নিয়ম অনুযায়ী আবশ্যকীয় ৩০ নম্বরের বাংলা বিষয়ে উত্তর না করায় পরীক্ষায় অকৃতকার্য হবে ন্যাশনাল কারিকুলামে পরীক্ষা দেয়া ৪১৬ জন পরীক্ষার্থী।

এদিকে একই ইউনিটে ২০ নম্বরের জন্য তিনটি ঐচ্ছিক তিনটি সাধারণ জ্ঞান, গণিত এবং অর্থনীতি বিষয় থাকে। পরীক্ষার্থীরা যে কোনো একটির উত্তর দিতে পারেন। উক্ত ইউনিটের দ্বিতীয় শিফটের পরীক্ষায় সাধারণ জ্ঞানের প্রশ্নপত্রে থাকা ‘বঙ্গবন্ধু কখন জাতিসংঘের জাতীয় অধিবেশনে ভাষণ দেন’ প্রশ্নটির উত্তরের জন্য থাকা ৪টি অপশনের কোনোটিই সঠিক উত্তর ছিল না। ফলে এ শিফটে সাধারণ জ্ঞান বিষয়ে ১৯ নম্বরকে ২০ নম্বরের শতাংশে ভাগ করে ফলাফল তৈরী করার সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ। এতে করে সমন্বিত ফলাফলে প্রথম শিফট এবং দ্বিতীয় শিফটের গণিত এবং অর্থনীতি বিষয়ে উত্তর করা পরীক্ষার্থীদের থেকে পিছিয়ে থাকবেন এই শিফটে সাধারণ জ্ঞান বিষয়ে উত্তর করা পরীক্ষার্থীরা। যা একটি অসামঞ্জস্য ও ত্রুটিপূর্ণ বিষয়।

এ বিষয়ে ‘ডি’ ইউনিটের সমন্বয়ক আব্দুল্লাহ আল ফারুক একুশে পত্রিকাকে বলেন, এটা আমাদের নিজেদের ভুল। আমি বিষয়টি জানতে পারিনি। যদি কেউ আমাকে জানাতো, তাহলে আমি অবশ্যই ব্যবস্থা নিতাম।

এ বিষয়ে ড. কাজী এস এম খসরুল আলম কুদ্দুসী একুশে পত্রিকাকে বলেন, সমন্বয়হীনতার করণে এই ধরনের সমস্যা হয়েছে। প্রশ্নসংক্রান্ত জটিলতা দেখা দিলে বিষয়টি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. ফরিদ উদ্দিন আহমেদকে জানিয়েছিলাম। ওই সময় বাংলার অতিরিক্ত প্রশ্ন পর্যাপ্ত ছিল না তাই শিক্ষার্থীদের আলাদা করে কোনো প্রশ্ন দেয়া সম্ভব হয়নি। পরিস্থিতি বিবেচনায় ন্যাশনাল কারিকুলামের শিক্ষার্থীদের ব্রিটিশ কারিকুলামের ‘স্পেশাল ইংলিশ’ অংশটি উত্তর দেয়ার নির্দেশ দেই।

এ বিষয়ে ড. ফরিদ উদ্দিন আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, অসম্পূর্ণ প্রশ্নের বিষয়ে আমাকে কিছুই জানানো হয়নি। অভিভাবকরা ফোন করে আমার কাছে অভিযোগ করলে আমি বিষয়টি জানতে পারি।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার সাংবাদিকদের বলেন, আমাকে কয়েকজন অভিভাবক বিষয়টি জানান। পরে পরীক্ষা কমিটির সাথে বৈঠক করে ৬ নভেম্বর ইংরেজি মাধ্যমের ৪১৬ শিক্ষার্থীর পরীক্ষা পুনরায় নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

Sharing is caring!

https://i2.wp.com/culive24.com/wp-content/uploads/2019/11/চবি-কর্তৃপক্ষের.jpg?fit=818%2C391&ssl=1?v=1572589154https://i2.wp.com/culive24.com/wp-content/uploads/2019/11/চবি-কর্তৃপক্ষের.jpg?resize=150%2C150&ssl=1?v=1572589154culiveক্যাম্পাসশিক্ষাচবিচবি প্রতিনিধি : নিয়মবহির্ভূত ও ত্রুটিপূর্ণ প্রশ্ন দিয়ে নেওয়া হয়েছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ‘ডি’ ইউনিটের দুই শিফটের ভর্তি পরীক্ষা। ফলে স্থগিত করা হয় ‘ডি’ ইউনিটের রেজাল্ট। ২৮ অক্টোবর ‘ডি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরুর পর দুই শিফটে ন্যাশনাল কারিকুলামের ৪১৬ জন শিক্ষার্থী প্রশ্ন নিয়ে জটিলতায় পড়েন। কিন্তু ঘটনার দিন তা কিছুই...Think + and get inspired | Priority for Success and Positive Info of Chittagong University