Sharing is caring!

প্রথমে নিজের মেয়েকে ড্রাগসের নেশায় আচ্ছন্ন করা। তারপর সেই নেশার সুযোগ নিয়ে নিজের মেয়েকে ধর্ষণ। কলেজে পড়তে গেলে এসএসএমএস করে নানাভাবে মেয়েকে উত্ত্যক্ত করা। এমনটাই করত ক্রিস্টোফার এডওয়ার্ডস নামে এক ব্রিটিশ বাবা। এমনকী সমাজে সবাইকে ক্রিস্টোফার নিজের মেয়েকে স্ত্রী বলেই পরিচয় দিতেন। শেষ অবধি বাড়ি থেকে পালিয়ে গিয়ে বাবার অপকীর্তি ফাঁস করল এমা ব্রাট নামের মেয়েটি।

এমা-র যখন ১৫ বছর বয়স তখন ওর মায়ের সঙ্গে বাবার ঝামেলার পর সে অন্যত্র চলে যায়। সেখানে এমা-র সঙ্গে থাকতে শুরু করে তার বাবা। সেখানেই মেয়েকে ড্রাগসের নেশা ধরিয়ে দেন বাবা। তারপর কোকেন ছাড়া থাকতেই পারত না মেয়ে। জোগান দিত বাবা। ড্রাগসের নেশায় আচ্ছন্ন অবস্থাতেই মেয়েকে ধর্ষণ করত বাবা। এমনকী মেয়ের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি ফেসবুকে পোস্টও করত ক্রিস্টোফার। দু বছর পর এমা নেশা থেকে বেরিয়ে এসে বাড়ি থেকে পালায়। তারপর সে পুলিসের দ্বারস্থ হয়।

মেয়ের অভিযোগের পর বাবাকে গ্রেফতার করা হয়। এর আগে ক্রিস্টোফারের বিরুদ্ধে বিকৃত যৌনাচারের অভিযোগ উঠেছিল। ১২ বছরের জেল হয়েছে ক্রিস্টোফারের।

Sharing is caring!

https://i2.wp.com/culive24.com/wp-content/uploads/2019/06/ধর্ষণ.jpg?fit=700%2C405&ssl=1https://i2.wp.com/culive24.com/wp-content/uploads/2019/06/ধর্ষণ.jpg?resize=150%2C150&ssl=1culiveআন্তর্জাতিকক্রিস্টোফার,ধর্ষণ,ব্রিটিশ বাবাপ্রথমে নিজের মেয়েকে ড্রাগসের নেশায় আচ্ছন্ন করা। তারপর সেই নেশার সুযোগ নিয়ে নিজের মেয়েকে ধর্ষণ। কলেজে পড়তে গেলে এসএসএমএস করে নানাভাবে মেয়েকে উত্ত্যক্ত করা। এমনটাই করত ক্রিস্টোফার এডওয়ার্ডস নামে এক ব্রিটিশ বাবা। এমনকী সমাজে সবাইকে ক্রিস্টোফার নিজের মেয়েকে স্ত্রী বলেই পরিচয় দিতেন। শেষ অবধি বাড়ি থেকে পালিয়ে গিয়ে বাবার...Think + and get inspired | Priority for Success and Positive Info of Chittagong University