Sharing is caring!

উত্তাল চবি ক্যাম্পাসে অর্ধ-শতাধিক শিক্ষার্থী আহত হওয়ার পাশাপাশি সাধারণ জনগণ অনেকেই পুলিশের নির্বিচারে গুলিতে আহত হয়েছে।

এক শিক্ষার্থী – মোঃ রাশেদ আক্ষেপ করে ফেইসবুকে চবি প্রশাসনকে লক্ষ্য করে বলেন

“প্রশ্ন রইল স্যার।।
আমি বা আমার চবির ছাত্র-ছাত্রীরা খারাপ
তাই বলে কি সাধারণ মানুষগুলোও খারাপ,,?? ”

Image may contain: one or more people and people standing

 

শান্তিপূর্ন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের উপর আক্রমণ , গুলি বর্ষণ , কাদানে গ্যাস নিক্ষেপে, ইট নিক্ষেপ, রাবার বুলেট বর্ষণ  ইত্যাদি কখনো চবি প্রশাসন থেকে আশা করা যায় না। অনেক সাধারণ শিক্ষার্থীসহ সংঘটনের নেতা কর্মীর কাছে একই প্রশ্ন ও দাবি চবি প্রশাসন কেনইবা শান্তিপূর্ন আন্দোলনকে রক্তাত্ব ক্যাম্পাসে পরিণত করতে নির্দেশ দিলো।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের একাংশের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে লাগানো তালা খুলতে গেলে পুলিশের সঙ্গে এ সংঘর্ষ বাঁধে। এতে ১ জন কনস্টেবলসহ ছাত্রলীগের ২০ জন কর্মী আহত হয়েছে। পরিস্থিতি শান্ত করতে পুলিশ প্রায় ২৫ রাউন্ড টিয়ারশেল ছোড়ে।

Image may contain: one or more people

রবিবার বেলা সাড়ে ১১টা ৪৫ মিনিট থেকে ১২টা ৪৫ মিনিট পর্যন্ত এ সংঘর্ষ হয়।

জানা যায়, অবরোধের শুরুতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে তালা লাগিয়ে বিক্ষোভ করেন ছাত্রলীগের একাংশের নেতাকর্মীরা। বেলা সাড়ে ১১টায় হাটহাজারী থানার ওসি বেলাল উদ্দিন তাদের তালা খুলতে বলেন। এসময় তারা তালা  খুলতে অস্বীকৃতি জানায়। পুলিশ লাঠিচার্জ করলে ছাত্রলীগের সঙ্গে সংঘর্ষ বাঁধে।

ছত্রভঙ্গ হয়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা শাহজালাল হলের সামনের সড়কে অবস্থান নিয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে ঢিল ছোড়ে। পুলিশও টিয়ারশেল ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে।Image may contain: one or more people, people standing and outdoor

সংঘর্ষের সময় পুলিশের এক কনস্টেবল ও ছাত্রলীগের তিনজন আহত হয়েছেন। তাদের বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার চট্টগ্রাম (উত্তর) মশিউদ্দৌলা রেজা বলেন, কিছু বহিষ্কৃত ও উচ্ছৃঙ্খল শিক্ষার্থীরা হাতাহাতি শুরু করে। আমরা যথাযথ চেষ্টা করেছি বোঝানোর জন্য। কিছু নেতা-কর্মী বুঝার চেষ্টা করলেও অন্যরা না বুঝে হাতাহাতি শুরু করে। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে মৃধু লাঠিচার্জ, জলকামান ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করা হয়। পরিস্থিতি এখন আমাদের নিয়ন্ত্রণে।

 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শাখা ছাত্রলীগ নেতা সাদাফ কবির বলেন, আমাদের শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে পুলিশ হামলা চালিয়েছে। আমরা এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি। হামলায় আমাদের ২০ থেকে ৩০ জন নেতা-কর্মী আহত হয়েছে।

Sharing is caring!

https://i0.wp.com/culive24.com/wp-content/uploads/2019/04/56548143_2291588337755318_8905613305276530688_n.jpg?fit=612%2C816&ssl=1https://i0.wp.com/culive24.com/wp-content/uploads/2019/04/56548143_2291588337755318_8905613305276530688_n.jpg?resize=150%2C150&ssl=1culiveএকাডেমিকক্যাম্পাসViral Pictures,চবি প্রশাসনউত্তাল চবি ক্যাম্পাসে অর্ধ-শতাধিক শিক্ষার্থী আহত হওয়ার পাশাপাশি সাধারণ জনগণ অনেকেই পুলিশের নির্বিচারে গুলিতে আহত হয়েছে। এক শিক্ষার্থী - মোঃ রাশেদ আক্ষেপ করে ফেইসবুকে চবি প্রশাসনকে লক্ষ্য করে বলেন 'প্রশ্ন রইল স্যার।। আমি বা আমার চবির ছাত্র-ছাত্রীরা খারাপ তাই বলে কি সাধারণ মানুষগুলোও খারাপ,,?? '   শান্তিপূর্ন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের উপর আক্রমণ , গুলি বর্ষণ ,...Think + and get inspired | Priority for Success and Positive Info of Chittagong University