চীনে সরকারিভাবে পড়াশোনা, আবাসনসহ অন্য খরচ বাদেও পাবেন টাকা

চীনে স্কলারশিপ নিয়ে সরকারিভাবে পড়াশোনার সুযোগ রয়েছে। চায়না গভমেন্টের পক্ষ থেকে বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে দরখাস্ত আহবান করা হয়েছে। ওই স্কলারশিপের আওতায় বাংলাদেশী শিক্ষার্থীরা চীনে বিনা খরচে পড়াশোনা করতে পারবেন। আবাসন ও টিউশন ফি বাদেও মাসে মাসে শিক্ষার্থীদের টাকাও দেয়া হবে। স্কলারশিপের আওতায় Under-graduate, Masters, Ph.D, General/Senior Scholar কোর্সের জন্য আবেদন করতে পারবেন। চলুন বিস্তারিত জেনে নিই :

আবেদনের যোগ্যতা :
১. বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে। অবশ্যই সু-স্বাস্থ্যের অধিকারী হতে হবে।
২. অন্য কোনো স্কলারশিপ বা ফান্ডিংয়ের জন্য মনোনীত হওয়া যাবে না।
৩. অনার্স প্রোগ্রামে আবেদনের জন্য উচ্চ মাধ্যমিক পাশ এবং বয়স অবশ্যই ২৫ এর চেয়ে কম হতে হবে।
৪. মাস্টার্স প্রোগ্রামে আবেদনের জন্য স্নাতক ডিগ্রিধারী এবং বয়স অবশ্যই ৩৫ এর চেয়ে কম হতে হবে।
৫. ডক্টরাল প্রোগ্রামে আবেদনের জন্য উচ্চ মাস্টার্স ডিগ্রিধারী এবং বয়স অবশ্যই ৪০ এর চেয়ে কম হতে হবে।
৬. General Scholar প্রোগ্রামে আবেদনের জন্য ন্যূনতম বয়স অবশ্যই ৪৫ এর চেয়ে কম হতে হবে। Senior Scholar প্রোগ্রামে আবেদনের জন্য মাস্টার্স ডিগ্রিধারী অথবা এসোসিয়েট প্রফেসর (অথবা তার উপরে) এবং বয়স অবশ্যই ৫০ এর চেয়ে কম হতে হবে।

যেসব সুবিধা পাবেন :
১. রেজিস্টেশন ফি।
২. টিউশন ফি।
৩. আবাসন ফি।
৪. আন্ডারগ্রাজুয়েট লেভেল শিক্ষার্থীদের জন্য মাসিক ভাতা ২৫০০ ইউয়ান যা বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ৩১ হাজার টাকা।
৫. মাস্টার্স ও ডক্টরাল লেভেলে ছাত্র/ছাত্রীদের জন্য মাসিক খরচ হিসেবে যথাক্রমে ৩০০০ ইউয়ান ও ৩৫০০ ইউয়ান প্রদান করা হবে। যা বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ৩৭ হাজার ও ৪১ হাজার টাকা।​ তবে, ল্যাবরেটরি ও ইন্টার্নশিপ ফি এবং যাতায়াত খরচ নিজেদের বহন করতে হবে। উল্লেখ্য পার্শিয়াল স্কলারশিপের আওতায় উপরের এক বা একাধিক সুবিধা পাওয়া যাবে।

স্কলালশিপে আবেদনের জন্য যা যা লাগবে :
১. সত্যায়িত একাডেমিক সার্টিফিকেট। যে প্রতিষ্ঠান থেকে ডিগ্রী অর্জন করা হয়েছে সেখান থেকে সত্যায়িত করা কপি লাগবে জমা দেয়া ক্ষেত্রে।
২. একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট।
৩. স্টাডি প্ল্যান। আন্ডাগ্র্যাজুয়েটের ক্ষেত্রে ২০০, নন-ডিগ্রি প্রোগ্রামে ৫০০ এবং মাস্টার্সের
ক্ষেত্রে কমপক্ষে ৮০০ শব্দের হতে হবে।
৪. ফিজিকাল এক্সামিনেশন ফরম।
৫. মাস্টার্স প্রোগ্রামের ক্ষেত্রে ২ টি রেকোমেন্ডেশন লেটার এসোসিয়েট প্রফেসর বা প্রফেসর নিতে হবে।
৬. চীনা বিশ্ববিদ্যালয়ের অফার লেটার যদি থাকে।
৭. আইইএলটিএস বা এইচএসকে যদি থাকে।

আবেদন করবেন যেভাবে : প্রথমে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। আবেদনের জন্য ক্লিক করুন : http://scholar.banbeis.gov.bd/cscchina/

পরে এই ঠিকানায় : https://studyinchina.csc.edu.cn/#/login আবেদন করতে হবে।

উপরের দুটি আবেদন কালার প্রিন্ট করে উপরে বর্নিত ডকুমেন্টসহ একটি বড় খামে ভরে জমা দিতে হবে এই ঠিকানায় :

Joint Secretary (Scholarship)
Secondary & Higher Education Division
Ministry of Education
Room No- 1706, Building No- 06,
Bangladesh Secretariat, Dhaka-1000

খামের উপরে Tracking Number, Program প্রাপক, প্রেরক ও প্রোগ্রামের নাম লিখতে হবে।

অনলাইনে আবেদনের শেষ সময় : ১৯ মার্চ ২০১৯ সকাল ১১ টা।
ডকুমেন্ট জমা দেয়ার শেষ সময় : ২০ মার্চ ২০১৯ বিকাল ৪ টা ৩০।

আবেদন করুন আজই। স্কলারশিপে চীনে পড়াশোনার জন্য শুভকামনা রইলো।

culiveস্কলারশিপআবাসনসহ অন্য খরচ বাদেও পাবেন টাকা,চীনে সরকারিভাবে পড়াশোনাচীনে স্কলারশিপ নিয়ে সরকারিভাবে পড়াশোনার সুযোগ রয়েছে। চায়না গভমেন্টের পক্ষ থেকে বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে দরখাস্ত আহবান করা হয়েছে। ওই স্কলারশিপের আওতায় বাংলাদেশী শিক্ষার্থীরা চীনে বিনা খরচে পড়াশোনা করতে পারবেন। আবাসন ও টিউশন ফি বাদেও মাসে মাসে শিক্ষার্থীদের টাকাও দেয়া হবে। স্কলারশিপের আওতায় Under-graduate, Masters, Ph.D, General/Senior Scholar কোর্সের...Think + and get inspired | Priority for Success and Positive Info of Chittagong University