১. সারা দুনিয়ায় সোসাল মিডিয়া কিন্তু শুধু ফেইসবুক না। টুইটার ও। টুইটার এর ইন্টারন্যাশনাল রীচ বেশী। মিডল ইস্ট , ওয়েস্টার্ন কান্ট্রিগুলোতে মানুষ টুইটার বেশী ইউজ করে। কারণ টুইটারে বেশী কথা বলা যায় না। লিমিট আছে। কাজেই সময় নষ্ট হয় কম।
টুইটারে ইমেজ- ভিডিও বেশী চলে , তাই।

২. মানুষের বিশাল বিশাল স্ট্যাটাস, নোট পড়ার সময় কম , উন্নত বিশ্বে। কাজেই ফেবুর চল কম।
টুইটারের চল বেশী, কারণ মানুষ শুধু একটা ইমেজ দেখেই সব বুঝে যায়। জাস্ট একটা ইমেজ সারা দুনিয়াকে কাঁপিয়ে দেয়। বা ছোট ভিডিও।

৩. কাজেই আপনাদের সবকিছু ফেবুতে নয় শুধু, টুইটারেও আপলোড করুন। জাস্ট ছোট একটা কথা দিয়ে একটা ইমেজ বা ছোট ভিডিও দিবেন। বড় বড় ভিডিও দেবার দরকার নেই। ৩০ সেকেন্ড বা এক মিনিট বা ইভে ১৫ সেকেন্ডের ভিডিও দিলেও হবে।

৪. আইলান কুর্দি, সেই বাচ্চা ছেলেটার ছবির কথা মনে আছে? শুধু একটা ছবি কতগুলো গর্ভনমেন্টের ডিসিশন চেঞ্জ করে দিলো? এটাই টুইটারের কাজ।

৫. কাজেই , অনুরোধ, সবাই একটা টুইটার একাউন্ট খুলুন। স্পেশালী ছোটদের প্রতি বিশেষ পরামর্শ। টুইটার খুলে তাতে বেশী কিছু না, জাস্ট একটা ছবি বা ভিডিও , সামান্য কিছু কথা লিখে দাও। সবাই রিটুইট করো। এটা ইন্টারন্যাশনাল মিডিয়ায় ঝড় তুলবে। ফেবুর ভ্যালূ একটু কম, টুইটার একটু বেশী এলিট, এলিটে গিয়ে হীট হয়। প্রফেশনাল লোকজন বেশী বেশী টুইটার ইউজ করে।

৬. এই যে শাহীদুল আলম কে গ্রেফতার করা হইছে, ওয়াহিদুজ্জামান ভাইয়ে টুইটারে রিটুইট হইছে মাত্র ১০০ বার। অথচ চিন্তা করো , বাংলাদেশে কত মানুষ, কিন্তু কেউ টুইটার ইউজ করেনা, কাজেই ইন্টারন্যাশনাল মিডিয়ায় খবর হয়না। অথচ দেশে কিন্তু ডাব্লিউ ডাব্লিউ ২ চলতেছে।

৭. বাংলাদেশ থেকে বাহিরে খবর কম ছড়ায়, কারণ হল টুইটার ইন্সট্রাগ্রাম আমরা কম ইউজ করি। ইয়েস ইন্সট্রাগ্রামও ভাল, ইউএসএতে বেশী ইউজ হয়।

টুইটারে ছবির ব্যাপারে বিশেষ পরামর্শ:

ক. কখনো কোন ফেইক নিউজ বা ইমেজ ছড়াবানা। এটা আন্দোলনকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে। শিউর হয়ে ইমেজ দিবে। যে ইমেজ নিজে তুলছো বা সত্যিকারের কোন ফ্রেন্ড তুলছে, বা নির্ভর যোগ্য কেউ তুলছে। ফেইক কিছু করার দরকারই নাই। যা কিছু রিয়েল তাই দিতে হবে।

খ. এমন ছবি দিতে হবে, যাতে বেশী রক্ত না থাকে। সিম্পল প্লেইন এবং অতিরিক্ত হিজিবিজি মুক্ত। এসব ছবি বেশী চলে।

গ. এমন ছবি, যা আন্দোলনের মূল স্পীরিটকে এবং মূল ঘটনাকে তুলে ধরে।

ঘ. এমন ছবি, যাতে একটা নির্দিষ্ট ফোকাস থাকে, যেমন্ আইলান কুর্দি : জাস্ট একটা ছেলে, দশ বারো জন দশ বারো রকম কাজ করতেছে, এমন না।

ঙ. প্ল্যাকার্ড লেখার সময়, ৫০% প্ল্যাকার্ড ইংরেজীতে লিখতে হবে। বাংলায় অনেক ভাল ভাল কথা লিখছি আমরা, কিন্তু বিবিসি সিএন এন নিউজে এগুলো যখন আসতেছে, রিপোর্টার নিজেই বুঝতেছেনা, যে স্টুডেন্টরা কি লিখছে আসলে। একটা প্ল্যাকার্ড অনেক কিছু চেঞ্জ করে দিতে পারে। কাজেই ৫০% প্ল্যাকার্ড ইংরেজীতে হবে, তাহলে মিডিয়া কাভারেজ পাবে। মনে রাখবে, বাংলাদেশের বাহিরে ‘বাংলা’ একটি চাইনিজ ল্যাংগুয়েজ। ফরমাল থেকে ইনফরমাল লোকাল ইংরেজী দিয়ে প্ল্যাকার্ড লিখলে ভাল হয়।

একটা প্ল্যাকার্ডের ইমেজ কিন্তু টুইটারে দেয়া যায়।

================

তাহলে তিনটা পয়েন্ট: টুইটারে একাউন্ট খোলা, সেখানে সত্যিকারের ছবি দেয়া এবং ইংরেজীতে প্ল্যাকার্ড লেখা। এই হল নতুন জিনিস যা এড করা দরকার।

==============

এন্ড আল্লাহ নোউজ দ্য বেস্ট।

=====================

আল্লাহ তোমাদের হেফাজত করুন, আমীন।
Copied from M. Rezaul

http://culive24.com/wp-content/uploads/2018/08/technical-skills-importance-employees-tips-guides.jpghttp://culive24.com/wp-content/uploads/2018/08/technical-skills-importance-employees-tips-guides-150x150.jpgculiveআইটি১. সারা দুনিয়ায় সোসাল মিডিয়া কিন্তু শুধু ফেইসবুক না। টুইটার ও। টুইটার এর ইন্টারন্যাশনাল রীচ বেশী। মিডল ইস্ট , ওয়েস্টার্ন কান্ট্রিগুলোতে মানুষ টুইটার বেশী ইউজ করে। কারণ টুইটারে বেশী কথা বলা যায় না। লিমিট আছে। কাজেই সময় নষ্ট হয় কম। টুইটারে ইমেজ- ভিডিও বেশী চলে , তাই। ২. মানুষের...Think + and get inspired | Priority for Success and Positive Info of Chittagong University