ঈদুল আযহা উপলক্ষে চট্টগ্রাম জেলার সব গরু কোরবানি না হলেও, সদ্য বিবাহিত কনের প্রতিটি বাবা-মাকে কোরবানী হতেই হবে।
অবাক লাগে যখন কিছু শিক্ষিত মানুষ এইটাকে চট্টগ্রামের সংস্কৃতি বলে প্রতিনিয়ত সাপোর্ট দিয়ে যাচ্ছে। কেউ আরও একধাপ এগিয়ে ফেবুতে ছবি দিয়ে বলছে “আলহামদুলিল্লাহ, ইহা শশুড়মশাই কোরবানী উপলক্ষে গিফট দিয়েছেন”। লজ্জাও লাগে না এইসবে পাবলিকের সামনে বলতে।

এইসব কারনেই চট্টগ্রামে মেয়ে হওয়ার পরপরই (৫০০/১০০০)টাকার একটা ফিক্সড-ডিপোজিট একাউন্ট করে রাখা হয়(উচ্চবিত্তদের ক্ষেত্রে আলাদা বিষয়)। কারন তারা জানে (মধ্যবিত্ত/নিম্ম-মধ্যবিত্ত), ১৮বছর পর মেয়ের বিয়ে সহ আনুসঙ্গিক খরচের যোগান দিতে পারবে না। বাবাদের রক্ত পানি করা ১৮/২০ বছরের জমানো কষ্টের ফল তার মেয়ের সাথে করে নিয়ে যাচ্ছেন? ৪বছরের ঈদের সাক্ষী একটি শার্ট,একজোড়া ছিঁড়া জুতাসহ অসংখ্য কষ্টের ফল হাত পেতে নেওয়ার সময় আপনাদের বুকটা একবার কাঁপে না?
নিরাপদ সড়কের জন্য আন্দোলন হয়, কোটা সংস্কারের আন্দোলন হয় কিন্তু একটা পিতাকে প্রতিনিয়ত মানসিক যন্ত্রনা দিয়ে মারা খুনীগুলোর জন্য কোন আন্দোলন হয় না। এই কুপ্রথা রোধ করার জন্য কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয় না।
“মেয়েদের জন্মই আজন্ম পাপ” এইকথা অন্যজায়গাতে কেমন প্রযোজ্য জানি না কিন্তু চট্টগ্রাম জেলার জন্য সবচেয়ে বেশি প্রযোজ্য৷

আল্লাহকে খুশি করার জন্য কোরবানী দেওয়া মানুষটা, মানুষকে দেখানোর জন্য কোরবানী দেওয়া মানুষটা, শশুড়বাড়ির গরু দিয়ে কোরবানী দেওয়া মানুষটা এবং কোরবানী হওয়া পিতাটাকে-সহ সকলকে “ঈদ মোবারক”।

লিখাঃ Fahim Chowdhury

Fahim ChowdhuryBlogব্লগমতামতঈদুল আযহা উপলক্ষে চট্টগ্রাম জেলার সব গরু কোরবানি না হলেও, সদ্য বিবাহিত কনের প্রতিটি বাবা-মাকে কোরবানী হতেই হবে। অবাক লাগে যখন কিছু শিক্ষিত মানুষ এইটাকে চট্টগ্রামের সংস্কৃতি বলে প্রতিনিয়ত সাপোর্ট দিয়ে যাচ্ছে। কেউ আরও একধাপ এগিয়ে ফেবুতে ছবি দিয়ে বলছে 'আলহামদুলিল্লাহ, ইহা শশুড়মশাই কোরবানী উপলক্ষে গিফট দিয়েছেন'। লজ্জাও লাগে...Think + and get inspired | Priority for Success and Positive Info of Chittagong University