মানবাধিকার সনদ ১৯৪৮ অনুসারে মানবাধিকারকে প্রত্যেক মানুষের জন্মগত অধিকার হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে, এবং মানবাধিকারের সুরক্ষা ও অগ্রগতি নিশ্চিত করা সরকারের সর্বপ্রথম কর্তব্য। শতাব্দী জুড়ে দার্শনিক আলোচলার মাধ্যমেই উদ্ভুত হয়েছে মানবাধিকার। প্রকৃতপক্ষে, মানবাধিকার চিরাচরিত আইনের শাসন ধারণাটির আধুনিক ব্যাখ্যাকেই প্রতিফলিত করে। এবং মানবাধিকার হচ্ছে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত কতিপয় নৈতিক নিয়মকানুন যা মানুষের স্বাধীনতা ও তাদের মধ্যে সমতাকে বিশদভাবে উপস্থাপন করে। মানবজাতিকে আরো বোধশক্তিসম্পন্ন ও সহানুভূতিশীল করে তোলার জন্য মানবাধিকার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। মানবাধিকারের গুরুত্ব অনুধাবন করে এসসিএলএস মানবাধিকার সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক আইনসমূহকে উপস্থাপন করতে যাচ্ছে। চট্টগ্রামের সাউদার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ২৯ ও ৩০শে জুন এসসিএলএল কর্তৃক আন্তর্জাতিক আইন নিয়ে আয়োজিত হবে ‘২য় প্রফেসর ড. খবির উদ্দীন আহমেদ মেমোরিয়াল মুট কোর্ট প্রতিযোগিতা ২০১৮’।

মূলত, সোসাইটি ফর ক্রিটিক্যাল লিগ্যাল স্টাডিজ – (এসসিএলএস) হচ্ছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষার্থীদের দ্বারা গঠিত একটি আইনশিক্ষা বিষয়ক সংগঠন। এটি সফলতার সাথে জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন ইভেন্ট আয়োজন করে আসছে, যার মধ্যে রয়েছে ‘১ম প্রফেসর ড. খবির উদ্দীন আহমেদ মুট কোর্ট প্রতিযোগিতা ২০১৭’, বাংলাদেশে প্রথমবারের মত ল অলিম্পিয়াড এবং উল্লেখযোগ্যভাবে রোহিঙ্গাদের উপর গণহত্যার বিচারে ‘এসসিএলএস স্টুডেন্টস’ ট্রাইব্যুনাল’। বাংলাদেশের আইন-শিক্ষাঙ্গনে এসসিএলএস সর্বদাই অবদান রেখে আসছে। এসসিএলএস এর এই পদযাত্রায় বিভিন্ন বিচারপতি, আইনজ্ঞ ব্যক্তি, বিচারক, ব্যারিস্টার ও এডভোকেট ও দেশের আইন অঙ্গনের সাথে সম্পৃক্ত অনেক ব্যক্তিবর্গ তাদের বুদ্ধিবৃত্তিক অবদানের মাধ্যমে এসসিএলএস-কে উদ্বুদ্ধ করেছে। এই প্রতিযোগিতাটি হল এসসিএলএল এর কর্মময় পদযাত্রার আরো একটি অংশ, যেটি এসসিএলএস এর সংগঠনগত অর্জনের খাতায় নতুন পালক যোগ করবে।
এই মুট কোর্ট প্রতিযোগিতায় ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিক, ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়, আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সহ দেশের মোট ১৩টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৬টি দল অংশগ্রহণ করছে। ৪৮ জন প্রতিযোগী মুটার ও রিসার্চার এর ভূমিকায় তাদের স্ব স্ব বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিত্ব করবে। এবং এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে বাংলাদেশের মুট কোর্ট কালচারে প্রথমবারের মত ‘রিসার্চার’স টেস্ট’ চালু হবে।
দেশের বিভিন্ন আইনজ্ঞ ব্যক্তিরা এ প্রতিযোগিতার তত্ত্বাবধানে থাকবে। বিচারক ও প্রাক্টিসিং এডভোকেটরা প্রতিযোগিতার বিচারক হিসেবে ভূমিকা পালন করবে। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনের শিক্ষকেরা তাদের উপস্থিতির মাধ্যমে এই প্রতিযোগিতায় প্রভাবকের ভূমিকা পালন করবে। তাদের উপস্থিতি দেশের তরুণ আইনজ্ঞদের উৎসাহ ও উদ্দীপনা যোগাবে।
এরই মাধ্যমে দেশের আইনশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর শিক্ষার্থীদের মধ্যে পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য এসসিএলএস-এর যে উদ্দেশ্য, সেটি সাধিত হবে।

http://culive24.com/wp-content/uploads/2018/06/36303247_1386461128122257_7839139747057369088_n.jpghttp://culive24.com/wp-content/uploads/2018/06/36303247_1386461128122257_7839139747057369088_n-150x150.jpgculiveইভেন্টমেমোরিয়াল মুট কোর্ট প্রতিযোগিতা-২০১৮মানবাধিকার সনদ ১৯৪৮ অনুসারে মানবাধিকারকে প্রত্যেক মানুষের জন্মগত অধিকার হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে, এবং মানবাধিকারের সুরক্ষা ও অগ্রগতি নিশ্চিত করা সরকারের সর্বপ্রথম কর্তব্য। শতাব্দী জুড়ে দার্শনিক আলোচলার মাধ্যমেই উদ্ভুত হয়েছে মানবাধিকার। প্রকৃতপক্ষে, মানবাধিকার চিরাচরিত আইনের শাসন ধারণাটির আধুনিক ব্যাখ্যাকেই প্রতিফলিত করে। এবং মানবাধিকার হচ্ছে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত কতিপয় নৈতিক নিয়মকানুন...Think + and get inspired | Priority for Success and Positive Info of Chittagong University