বর্ণা দেখে থাকার মত সুন্দরী। সাধারণত সুন্দরীদের ২/৩ বার দেখলে তেমন আর আকৃষ্ট করে না। কিন্তু বর্ণার দিকে তাকালে মন চায় সারাদিন তাকিয়ে থাকি।আমার সাথে পরিচিত হওয়ার পুর্বে বর্ণা নাকি কখনো হাসে নাই।সে আগে ডেথ ফোবিয়াতে ভোগতো।আমার সাথে পরিচয় হয়েছে বন্ধুর মাধ্যমে।একই বিল্ডিংএ থাকে আমার বন্ধু আশিকরা। ঢাকায় গেলে আশিকদের বাসায় উঠি।

বর্ণা প্রায় বলতো তোমার মত ছেলে আছে পৃথিবীতে,এটা যদি আমি আগে জানতাম।তোমাকে ভাড়া করে নিয়ে আসতাম।আমার প্রতিটা কথায় বর্ণা হাসতো।সে যেন স্বর্গ দেশের আহ্লাদী রাজ কুমারী।সে বার যে কয়দিন ঢাকা ছিলাম,কাজের বাইরে সবগুলো সময় বর্ণাকে দিতে হত।অথচ আমার প্রতি যে তার ইমোশন জন্মিয়াছে তা কখনো বলেনি!! আর আমি ব্যক্তি হিসাবে কিছুটা অনুভুতিহীন,অনেকটা উদাসিন।কারো প্রতি ভালো লাগা বা কাওকে ভালোবাসা এগুলা আমার কখনো আসেনি,চিন্তাও আসেনা,বলতে গেলে এদিকটা দিয়ে আমি একদম অনুভূতিহীন।বর্ণার পুরা নাম হুমাশা বিনতে ইমতিয়াজ বর্ণা। আমি ছাড়া পরিচিত সবাই তাকে বর্ণা ডাকতো।আমি হুমাশা ডাকতাম।ছোট বেলায় মা মারা যায়। এই জন্য ছোটবেলা থেকে ডেথ ফোবিয়াতে আক্রান্ত। অনেক হাই পাওয়ারফুল ঔষুধও সেবন করতো।আমি যে কয়দিন ছিলাম সে কয়দিন নাকি ঔষুধ খেতে হয়নি।আমাকে প্রায় বলতো জুবু!! আল্লাহ তোমারে কি দিয়া বানাইসে?? একদিন ঢাকার আকাশে অনেক মেঘ জমেছে,সে আমাকে হাত ধরে চাদে নিয়ে যায়।আর বলে আজকে আমরা ভিজবো!! তবে সেদিন বৃষ্টি হয়নি। আমি চলে আসার সময় ভীষণ কান্নাকাটি করেছিল।ঠিক যেমন বাচ্চা মেয়েরা করে।অথচ বর্ণা আঠারোর যুবতী। আমাকে বলেছিল কখনো যেন তার সাথে যোগাযোগ বন্ধ না করি।

চট্টগ্রাম আসার পর বেশ কয়েকবার ওর সাথে কথা হয়।ঘন্টা পর ঘন্টা ও কথা বলতো। একটা সময় আমি বিরক্ত হয়ে যেতাম।আমারর ঐ মোবাইলটা চুরি হয়ে যায়।পরে আমি নতুন সিম কিনি।আমি সবসময় বর্তমান নিয়ে ব্যস্ত থাকি।কোন কিছু চোখের আড়ালে গেল আমি তা ভুলে যাই,হোক সেটা যতই আপন।

আজ ঢাকায় প্রচন্ড বৃষ্টি। বর্ণা চারমাস আগে মারা যায়।সেই লিপিস্টিক রাঙা বিল্ডিংটার চাদে যেখানে সে আমারর হাত ধরে নিয়ে এসেছিলো,সে জায়গায় আমি দাড়িয়ে আছি।প্রচন্ড বৃষ্টি তবে বর্ণা নেই……………..

https://i1.wp.com/culive24.com/wp-content/uploads/2018/05/ছোট-গল্প.jpg?fit=638%2C344https://i1.wp.com/culive24.com/wp-content/uploads/2018/05/ছোট-গল্প.jpg?resize=150%2C150culiveগল্পছোট গল্পবর্ণা দেখে থাকার মত সুন্দরী। সাধারণত সুন্দরীদের ২/৩ বার দেখলে তেমন আর আকৃষ্ট করে না। কিন্তু বর্ণার দিকে তাকালে মন চায় সারাদিন তাকিয়ে থাকি।আমার সাথে পরিচিত হওয়ার পুর্বে বর্ণা নাকি কখনো হাসে নাই।সে আগে ডেথ ফোবিয়াতে ভোগতো।আমার সাথে পরিচয় হয়েছে বন্ধুর মাধ্যমে।একই বিল্ডিংএ থাকে আমার বন্ধু আশিকরা। ঢাকায় গেলে...Think + and get inspired | Priority for Success and Positive Info of Chittagong University