মাঝে মাঝে ইচ্ছে করে “কোটা নিপাত যাক” এমন একটি স্লোগান বুকে পিঠে লিখে তিউনিসিয়ার বুয়াজিজির মতো গায়ে আগুন দিয়ে আত্মাহুতি দেই শাহবাগ চত্তরে । ছোট দুইটা ভাই আছে, তাদের পড়ালেখার দায়িত্ব নিতে হবে অচিরেই, এই ভেবেই এই সিদ্ধান্তটা নিতে পারছি না, তাই কাপুরুষের মতো সহ্য করে বেঁচে আছি, বড় লজ্জা নিয়েই বেঁচে আছি ।

অত্যুক্তি ভাবতে পারেন, পৃথিবী নিকৃষ্টতম অবিচার-বৈষম্য আমাদের কোটা প্রথার কথা ভেবে যে কত রাত নির্ঘুমে ছটফট করেছি তার ইয়ত্তা নেই। বোধ করি, আজ রাতটাও এমনি কাটবে।

মাঝে মাঝে ভাবি, একটি অসভ্য দেশের নাগরিক হওয়া পূর্বজন্মের কোন পাপের ফসল। সেজন্য নিজেকেই বারবার ধিক্কার জানাই!!

তামাম দুনিয়ায় একবিংশ শতকে যতগুলো বৈষম্য আছে, তার মধ্যে একটি বৈষম্য হলো ০.০১৩% মানুষের জন্য ৩০% কোটা সংরক্ষণ। হ্যা, ঠিকই দেখছেন ১ভাগও না, ১/২ ভাগও না, সিকি ভাগও না, মাত্র ০.০১৩ ভাগ।

প্রতি ৭০০ জন চাকরী প্রার্থীর মাঝে ১ জন মুক্তিযোদ্ধার আওলাদ থাকে, এ ভাগ্যবান ১ জনের জন্য ৩০ ভাগ বরাদ্দ!!

দুইটা ঘটনা বলবো

৩৫ বিসিএসের মেডিকেল ফেস করবো । আমার আগে মেডিকেল হয়ে যাওয়া কোটা নিয়ে এডমিন ক্যাডারে সুপারিশ প্রাপ্ত এক বন্ধুর কাছে ফোন করলাম, কেমন গেট-আপে যাবো তার খোজ খবর নেয়ার জন্য।

সে বললো, কাপড়চোপড় তেমন কিছুনা, ‘Unformally’ গেলেও চলবে। বললাম, আচ্ছা ঠিক আছে

সেদিন দুপুরে আবার ফোন করলো বন্ধু, ” কিরে ম্যাডিকেল হইছে?
…. না, হয়নি। এক্সরে টা ক্লিয়ার না।
বন্ধু রাগ নিয়ে বললো
তোর তো সবকিছুই uncomplete থাকে ।

আমি আজও Unformally আর uncomplete শব্দটির অর্থ খুঁজে পেলাম না, Oxford ডিকশনারিতেও নয়! সেইই বন্ধুই হবে আগামী দিনের সচিব !!

২ মাস আগের কথা, আমার কাছে কাগজপত্র সত্যায়িত করতে আসছে একটা মেয়ে। মুক্তিযোদ্ধার নাতী কোটায় প্রাইমারি স্কুলে চাকরি পেয়েছে ।
ছবি সত্যায়িত করার সময় ছবির পেছেন ইংরেজিতে নাম লিখতে বলি।
সে বললো, “স্যার সার্টিফিকেট টা একটু দেখি। যদি বানান ভুল হয়ে যায়”

এই হলো আমাদের আগামী দিনের শিক্ষক!!

কিন্তু মজার বেপার হলো, অনেক চাকরীপ্রার্থী মুক্তিযোদ্ধার সন্তান নিজের পিতার কৃতিত্বের কথা অস্বীকার করে, পাছে কোটাধারী পরিচয় ফাঁস হয়ে যায় !!
পিতার পরিচয় অস্বীকার করে, কিন্তু সুযোগটা কে আঁকড়ে ধরে।

নাতী-নাতনি কোটার কথা মনে হলে নিজেকে হীরক রাজার প্রজা মনে হয় । লজ্জা লাগে, বড়ই লজ্জা লাগে!!

নন-ক্যাডারে যে প্রাইমারি হেডমাস্টার হওয়ার কথা, সে হচ্ছে ম্যাজিস্ট্রেট!! যে কোটা না থাকলে এস.আই হতে পারবে না, সে হচ্ছে এএসপি ।

১৭৫৭ সালে মীরজাফরের বেঈমানি, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশি রাজাকার-আলবদর-আলশামসের পাকিস্তানের পক্ষাবলম্বন, স্বজাতি কর্তৃক ১৯৭৫ সালে জাতির পিতার হত্যা বাঙ্গালী জাতির জন্য যতটা লজ্জার, একটি স্বাধীন দেশে ৫৬% ভাগ কোটাও ততটাই লজ্জার বিষয় !!

এই অমানবিক বৈষম্যের পরেও আজ হাজার হাজার বঞ্চিত তরুণ-তরুণী চুপ করে বসে আছ। কতটা প্রজন্ম বঞ্চিত হবে বলতে পারেন?
ইমাম মেহেদী
সাবেক ছাত্র, চবি।

https://i1.wp.com/culive24.com/wp-content/uploads/2018/03/কোটা-1.jpg?fit=428%2C266https://i2.wp.com/culive24.com/wp-content/uploads/2018/03/কোটা-1.jpg?resize=150%2C150culiveএক্সক্লুসিভমাঝে মাঝে ইচ্ছে করে 'কোটা নিপাত যাক' এমন একটি স্লোগান বুকে পিঠে লিখে তিউনিসিয়ার বুয়াজিজির মতো গায়ে আগুন দিয়ে আত্মাহুতি দেই শাহবাগ চত্তরে । ছোট দুইটা ভাই আছে, তাদের পড়ালেখার দায়িত্ব নিতে হবে অচিরেই, এই ভেবেই এই সিদ্ধান্তটা নিতে পারছি না, তাই কাপুরুষের মতো সহ্য করে বেঁচে আছি, বড়...Think + and get inspired | Priority for Success and Positive Info of Chittagong University