মেসের ছেলেদের একটা কমন ফিচার হলো এরা সকাল বেলার পত্রিকাটা নিয়ে সবার প্রথমেই বিনোদন পেইজে চলে যায় । ছেলেটা বেকার হোক কিংবা চাকুরীজীবি হোক …সবার আগে দেখা দরকার বিনোদন পেইজের মডেলের ছবি । এরপর অন্য কিছু ।

আমাদের মেসে থাকা শাকুর ভাই প্রতিদিন একগাদা টেনশন নিয়ে ঘুম থেকে উঠে । সকালে নাস্তা করতে করতে গার্লফ্রেন্ডের সাথে কথা বলে । গার্লফ্রেন্ডের বিয়ের চাপ আসে । সেই চাপ শুধু ভুক্তভুগি প্রেমিক ছাড়া আর কেউ বুঝতে পারে না । এই শাকুর ভাইই আবার বিয়ে হতে যাওয়া প্রেমিকাকে নিয়ে নতুন স্বপ্ন বোনে । একটা ঘর । লিমিটেড ফার্নিচার । একটা সংসার !!

আমার পাশের রুমের আলাউদ্দিনের কোন টেনশন নাই । ছাত্র মানুষ !! টিউশন করায় । বোনাস পেলে আমাদেরও খাওয়ায় । ছেলেটা প্রেম করে না ।ক্রাশ খেয়েই সুখ মিটায় । ইদানিং তার ক্রাশ লিস্টে আছে সামনের গলির ৬ নম্বর বাসার ৩ তলার মেয়েটা ।

চাকুরিজীবি জাহিদ ভাই বউকে নিয়ে টেনশনে আছে । ইদানীং রাতের বেলা ভাবীর মোবাইল ব্যাস্ত থাকে । জাহিদ ভাই অনেক খুঁজেও কারন বের করতে পারে না । প্রেমের বিয়ে করেছে ১ বছর আগে । পরিবারের বিরুদ্ধে গিয়ে বিয়ে । মেয়ের বাবা বলে দিয়েছেন লাখ টাকার চাকুরী না করলে তার মেয়েকে ঘরে তুলতে দেবেন না । নির্বিকার জাহিদ ভাই এখন লাখ টাকার চাকুরী খোঁজেন ।

আমাদের মধ্যবিত্ত জীবনের স্যান্ডউইচ হওয়া গল্পে তাই ঘুরে ফিরে সেই পুরোনো আমেজটাই বারবার ফিরে আসে ।

সকাল হয় !!
নাস্তা করতে চলে যাই বকর ভাইয়ের দোকানে । বেশি দেরী হলে বাসি পরোটা খেয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় ।

মেসের বুয়াটা বদলাতে হবে । তাকে ইদানিং অসময়ে মেসের বিভিন্ন রুমে দেখা যায় ।

একদিন এই সিনারিও চেঞ্জ হয় ।
শাকুর ভাই বিয়ে করেছেন । এক বাচ্চার বাপ হয়ে গেছে সে । জীবন কারো জন্য থেমে থাকে না । শাকুর ভাইয়ের ক্ষেত্রেও তাই হয়েছে । যাকে ভালোবাসে তাকে নিয়ে ঘর করতে পারে নি । কিন্তু যাকে নিয়ে ঘর করছে তাকেই এখন সব থেকে বেশি ভালোবাসে ।

আলাউদ্দিন এখন চাকুরি করে এবি ব্যাংকে । সিনিয়র অফিসার সে !! দেখে দেখে ক্রাশ খাওয়ার সময় নেই তার । ৬ নম্বর বাসার ৩ তলার মেয়েটাকে নিয়ে তার মধ্যে কোন উচ্ছ্বাস নেই ।

জাহিদ ভাইয়ের ডিভোর্স হয়ে গেছে ৩ বছর আগেই । এখন উত্তরাতে থাকে । নতুন সংসার হয়েছে তার । আমেরিকান টোবাকোতে চাকুরিও করেন । শুনেছি বউকে নিয়ে হানিমুনে যাচ্ছেন সুইজারল্যান্ড !!

শাকুর , জাহিদ , আলাউদ্দিন …কারো জীবনই থেমে থাকে না । কারো জন্যই থেমে থাকে না । কোন কারনেই থেমে থাকে না ।

বসন্তের এক সন্ধ্যায় যে মানুষটার হাত ধরে হারিয়ে যেতে ইচ্ছে করেছিল আজকে বহুদিন পর সেই একইরকম সুন্দর লাগা বসন্তের সন্ধ্যায় শাকুর ভাই আবিস্কার করে এখন আর সেই হাতগুলো ধরে হারিয়ে যেতে ইচ্ছে করে না ।

জাহিদ ভাই এখন আর টেনশন নিয়ে ঘুমোতে যায় না । কাউকে এখন আর ফোন করে জিজ্ঞেসও করে না তুমি এতো রাতে কার সাথে কথা বলো ? অশান্তি বিদায় করা হয়েছে ।

জীবন কাউকেই আমাদের জন্য অপরিহার্য করে পাঠায় নি । এটাই নিয়ম !! এবং এই নিয়মই কার্যকর হবে এবং হচ্ছে ।

যতদিন সন্ধ্যা আসবে কিংবা যতদিন হারিয়ে যেতে ইচ্ছে করবে ,জীবন তার এই নিয়মকেই প্রতিষ্ঠিত করবে 🙂

Arafat Abdullah (মধ্যরাতের অশ্বারোহী )
University Of Chittagong

https://i0.wp.com/culive24.com/wp-content/uploads/2018/03/মেসের-ছেলেদের-একটা-কমন-ফিচার.jpg?fit=812%2C481https://i1.wp.com/culive24.com/wp-content/uploads/2018/03/মেসের-ছেলেদের-একটা-কমন-ফিচার.jpg?resize=150%2C150culiveগল্পমেসের ছেলেদের একটা কমন ফিচার হলো এরা সকাল বেলার পত্রিকাটা নিয়ে সবার প্রথমেই বিনোদন পেইজে চলে যায় । ছেলেটা বেকার হোক কিংবা চাকুরীজীবি হোক ...সবার আগে দেখা দরকার বিনোদন পেইজের মডেলের ছবি । এরপর অন্য কিছু । আমাদের মেসে থাকা শাকুর ভাই প্রতিদিন একগাদা টেনশন নিয়ে ঘুম থেকে উঠে ।...Think + and get inspired | Priority for Success and Positive Info of Chittagong University