সাহিত্য সংবাদঃ

‘তারুণ্য মানেই প্রেম, তারুণ্য মানেই শক্তি। তারুণ্যকে কোনো বয়সের ফ্রেমে বাঁধা যায় না। কিন্তু তরুণরা যখন হতাশায়, বিষন্নতায়, দুশ্চিন্তায় আটকা পড়ে তখন তরুণদের মধ্য থেকে হারিয়ে যায় ‘তারুণ্য’। আবার কারো কারো বয়সের দৌঁড়ে চুলে সাদা রঙের প্রলেপ চোখে পড়লেও; সেই বয়স্কদের মধ্যেও শক্তি, চ্যালেঞ্জ ও সাহসে ফুটে উঠে ‘তারুণ্য ‘। একান্ত আলাপচারিতায় কথাগুলো বলছিলেন এসময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় পাঠকনন্দিত মোটিভেশনাল বই ‘রোড টু সাকসেস ‘ এর লেখক সত্যজিৎ চক্রবর্ত্তী

মোটিভেশন স্পীকার,লেখক সত্যজিৎ চক্রবর্তী

 

বর্তমান প্রজন্ম যখন হতাশায় জর্জরিত, স্বপ্ন দেখতে ভুলে যাচ্ছে, দুঃস্বপ্নের চোরাবালিতে আশার অপমৃত্যু ঘটছে ঠিক তখন, গত ডিসেম্বরে দাঁড়িকমা প্রকাশনী থেকে একটি আত্ম-উন্নয়নমূলক বই প্রকাশিত হয় ‘রোড টু সাকসেস ‘ নামে। দেশে ও বিদেশে বাংলা ভাষীদের কাছে বইটির কেন এত জনপ্রিয়তা জানতে চাইলে দাঁড়িকমা প্রকাশনীর সত্ত্বাধিকারী ও প্রকাশক আবদুল হাকিম নাহিদ জানান, ‘আমাদের দেশে মোটিভেশনাল লেখক নেই বললেই চলে। যে ক’জন লেখক প্রেরণাদায়ী লেখা দিয়ে বই বের করেন, তাদের অধিকাংশ বই অনুদিত। তাছাড়া এই বইয়ের লেখক নিজে একজন মোটিভেশনাল স্পীকার। যার ফলে মানুষের হতাশার জায়গাটা তিনি ব্যবহারিকভাবেই বুঝতে পারেন। তাই হয়তো বইটি এতটা জনপ্রিয়তা পেয়েছে। এক কথায় এটি একটা ‘হাইভোল্টেজ ‘ মোটিভেশনাল বই। তাছাড়া অবাক করার বিষয় হচ্ছে–

মাত্র এই ৯ মাসে এমন কোনো দিন নেই যেদিন বইটি বিক্রি হয়নি। যার ফলে ৯ মাসের মধ্যেই বইটি পঞ্চম মুদ্রণে যাচ্ছে। এটি প্রকাশনা জগতে একটা নতুন মাইলফলক। “

কয়েকজন তরুণকে জিজ্ঞেস করা হলে তারা জানান, বইটির লেখকের অনলাইন লেখাগুলো পড়েই তারা সবসময় নিজেদের মাঝে সাহস খুঁজে পেতেন। যখন তারা জানতে পারলেন এই লেখকের বই বের হয়েছে তখনই তারা কাল বিলম্ব না করে তা কেনার জন্য হাজির হয়েছিলেন।

হাইভোল্টেজ মোটিভেশনাল বুক “রোড টু সাকসেস”

হঠাৎ কেন এই একটা বইয়ের প্রতি মানুষের চাহিদা বেড়ে গেল এমন অনুসন্ধানে নেমে দেখা গেল, সুদুর এথেন্সে বসে সেখানকার বাংলাদেশ দূতাবাসের ১ম সচিব সুজন দেবনাথ ‘রোড টু সাকসেস ‘ নিয়ে প্রশংসামুলক রিভিউ লিখেছেন এবং সবাইকে এই বইটি পড়ার আহবান জানিয়েছেন। অনলাইন অনুসন্ধানে আরো জানা যায়, অসংখ্য বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে বিসিএস ক্যাডার অফিসার, বহুজাতিক কোম্পানির ঊর্ধতন কর্মকর্তা ও প্রশিক্ষক সহ অগণিত তরুণদের মাঝে উদ্দীপনা সৃষ্টি করেছে বইটা।

কথা বলেছি একটি মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানীর মার্কেটিং ম্যানেজারের সাথে। তিনি জানালেন, বইটি এতটা পাঠকপ্রিয়তার কারণ হলো, আজকাল আমরা কাউকে প্রেরণা দিতে গিয়ে বিদেশের সফল মানুষদের উদাহরণ টেনে আনি। কিন্তু বইটির লেখক ভিন্ন কারিশমা এখানেই দেখিয়েছেন। তিনি বইটি এমনভাবে লিখেছেন যিনি পড়বেন তাঁরই মনে হবে কথাগুলো তাকেই বলা হচ্ছে। তিনি আরো জানালেন, হতাশাকে হতাশ করার আর ব্যর্থতাকে ব্যর্থ করার একটা চ্যালেঞ্জ নিয়েই মুলত লেখক এই বইটির জন্ম দেন।

প্রকাশনী প্রতিষ্ঠান -দাঁড়িকমা প্রকাশনী

সমসাময়িক লেখক হৃদয় ইসমাইল জানান,-

‘রোড টু সাকসেস ‘ বইটি পড়লে মনে হয় কেউ আমার সামনে বসে আমাকে প্রশিক্ষণ দিচ্ছে। আমি আমার শুভাকাঙ্ক্ষীদের জন্মদিনে বইটি উপহার হিসেবেও দিয়েছি।

ঢাকাস্থ বহুজাতিক কোম্পানির কর্মকর্তা ও প্রশিক্ষক জানান, আমি সারাজীবন অন্যদের প্রশিক্ষণ দিয়ে এসেছি। অথচ এই বইটি পড়ে মনে হলো আমার নিজের শ্রেষ্ঠ প্রশিক্ষণ এই বইটি পড়েই করেছি। এই বইটি একটা নীরব বিপ্লব ঘটাবে বলেও তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সাপ্তাহিক দ্বীপশিখা পত্রিকার সম্পাদক জানান, একুশে বই মেলায় তাদের অনুসন্ধানে উঠে আসা যে কয়টি বইয়ের পাঠকপ্রিয় হিসেবে নাম পাওয়া যায় তার মধ্যে ‘রোড টু সাকসেস ‘ ও ছিল। তবে মোটিভেশনাল বই হিসেবে এটিই বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় বই।

বইটির প্রকাশকের তথ্যমতে বাংলাদেশের প্রায় প্রতিটি জেলাতেই বইটির পাঠক রয়েছে এবং বাংলাভাষীদের পাশাপাশি যেন অন্যান্য দেশের ভিন্ন ভাষার পাঠকরাও এটি পড়তে পারেন তার জন্য বইটির ইংরেজি অনুবাদের কাজ চলছে।

বইটি পেতে : https://www.facebook.com/darikomaprokasoni

https://i0.wp.com/culive24.com/wp-content/uploads/2017/10/FB_IMG_1509193118309.jpg?fit=700%2C1024https://i1.wp.com/culive24.com/wp-content/uploads/2017/10/FB_IMG_1509193118309.jpg?resize=150%2C150হৃদয় ইসমাইলMediaআদার্সইন্টারভিউউদ্দীপনাএক্সক্লুসিভক্যাম্পাসক্যারিয়ারব্যাক্তিত্বমতামতসাহিত্যসাহিত্য সংবাদঃ 'তারুণ্য মানেই প্রেম, তারুণ্য মানেই শক্তি। তারুণ্যকে কোনো বয়সের ফ্রেমে বাঁধা যায় না। কিন্তু তরুণরা যখন হতাশায়, বিষন্নতায়, দুশ্চিন্তায় আটকা পড়ে তখন তরুণদের মধ্য থেকে হারিয়ে যায় 'তারুণ্য'। আবার কারো কারো বয়সের দৌঁড়ে চুলে সাদা রঙের প্রলেপ চোখে পড়লেও; সেই বয়স্কদের মধ্যেও শক্তি, চ্যালেঞ্জ ও সাহসে ফুটে উঠে...Think + and get inspired | Priority for Success and Positive Info of Chittagong University