তো কিছুদিন আগে একটা পেপারে পড়লাম
নাকি বলেছেন, চিকুন-গুনিয়ার বিস্তারের জন্য নাকি সিটি কর্পোরেশনকে দোষ দেওয়া যাবে না। মানুষের বাসায় বাসায় গিয়ে মশা মারা তাদের পক্ষে সম্ভব নয়।

ঠিক বলেছেন স্যার। আমিও আপনার সাথে একমত। তবে কাওকে না কাওকে তো দোষ দিতেই হবে, কারণ এটা তো বাংলাদেশ। নিজের দোষ অন্যের উপর চাপিয়ে দেওয়া তো আমাদের রক্তেই মিশে আছে।

তাই মেয়রের উদ্দেশ্যে বলছে, আপনি দোষ দিতে পারেন দেশের কন্ডম ফ্যাক্টরিগুলোকে যারা মশার সাইজের কন্ডম বানায় না, যার ফলে মশা প্রচুর পরিমাণে বংশবিস্তার করছে আর মানুষ রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।

দোষ দেওয়া যায় দেয়ালে ঝোলে থাকা টিকটিকিগুলোকে যারা দ্বায়িত্বে চরমতম অবহেলা করে টিকটিকি নিধন করছে না।

দোষ দেওয়া যায় ডোবার মাছগুলোকে যারা ভালোভাবে মশার শুককীট খাচ্ছে না।

দোষ দেওয়া যায় প্রতিটা পুরুষ মশাকে যার অনিয়ন্ত্রিত ও পরিকল্পনাহীন পরিকল্পনার কারণে মশার সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে।
সেই সাথে সংসদে মশা বিষয়ক মন্ত্রী নিয়োগ করতে হবে।

সংগৃহীত

culiveআদার্সপলিটিক্সস্বাস্থ্য ও চিকিৎসাতো কিছুদিন আগে একটা পেপারে পড়লাম নাকি বলেছেন, চিকুন-গুনিয়ার বিস্তারের জন্য নাকি সিটি কর্পোরেশনকে দোষ দেওয়া যাবে না। মানুষের বাসায় বাসায় গিয়ে মশা মারা তাদের পক্ষে সম্ভব নয়। ঠিক বলেছেন স্যার। আমিও আপনার সাথে একমত। তবে কাওকে না কাওকে তো দোষ দিতেই হবে, কারণ এটা তো বাংলাদেশ। নিজের দোষ...Think + and get inspired | Priority for Success and Positive Info of Chittagong University